গ্র্যাজুয়েটদের জন্য ইন্টার্নশিপ চালু হচ্ছে

 গ্র্যাজুয়েটদের জন্য ইন্টার্নশিপ চালু হচ্ছে
Read Time:4 Minute, 2 Second

নিজস্ব প্রতিবেদক: সদ্য গ্র্যজুয়েটদের চাকরি উপযোগী করে গড়ে তুলতে ইন্টার্নশিপ কার্যক্রম চালু হচ্ছে। সরকার পাবলিক ও প্রাইভেট সেক্টরের মাধ্যমে তাদের জন্য ইন্টার্নশিপ কার্যক্রম চালুর ওপর জোর দেবে। এ জন্য আগামী অর্থবছরে একটি ‘পলিসি ফ্রেমওয়ার্ক’ প্রণয়ন করার ঘোষণা দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামাল।

বৃহস্পতিবার (৩ জুন) বিকাল তিনটায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদে বাজেট উপস্থাপন করছেন তিনি। বাজেট বক্তৃতার লিখিত বক্তব্যে এ বিষয়ে জানা গেছে। 

বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রতিবছর আমাদের দেশে বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করে চাকুরি ক্ষেত্রে প্রবেশের উপযোগী হচ্ছে। এ সকল সদ্য গ্রাজুয়েটরা যাতে সহজেই স্বীয় ক্ষেত্রে চাকুরি পেতে পারে, তা নিশ্চিত করার জন্য সরকার পাবলিক ও প্রাইভেট সেক্টরের মাধ্যমে তাদের জন্য ইন্টার্নশিপ কার্যক্রম চালুর ওপর জোর দেবে। সে লক্ষ্যে আমি ঘোষণা প্রদান করছি যে, এই ইন্টার্নশিপ কার্যক্রম অবিলম্বে চালুর জন্য আগামী অর্থবছরে এ বিষয়ে একটি ‘পলিসি ফ্রেমওয়ার্ক’ প্রণয়ন করা হবে।

বাজেট প্রস্তাবে বলা হয়েছে, ‘প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রযোজ্য সাধারণ করহার হ্রাস করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ, বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ, বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ বা কেবল তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে শিক্ষাদানে নিয়োজিত বেসরকারি কলেজ থেকে উদ্ভূত আয়ের ১৫ শতাংশ হারে কর নির্ধারণ করা হয়েছিল। মহান এ সংসদে আমি এ করহার অর্থ আইনের মাধ্যমে ১৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করছি।’

উল্লেখ্য, সাতচল্লিশে দেশভাগের ঠিক দুই মাস আগে জুনের ১৫ তারিখে কুমিল্লার লালমাইয়ে জন্মগ্রহণ করেন আবু হেনা মুহাম্মদ মুস্তফা কামাল। পরের ক’বছরে শিক্ষাজীবনে অসামান্য কৃতিত্বের জন্য তাকে দেওয়া হয় লোটাস উপাধি।

এর পর প্রথমে হন চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট। পরে ক্রীড়া সংগঠক হিসেবে হয়েছিলেন বিসিবি আর আইসিসির সভাপতিও। শেষমেশ এলেন রাজনীতির মাঠে। যার হাতেই এখন রাষ্ট্রীয় আয়-ব্যয়ের গুরুত্বপূর্ণ ভার। অর্থমন্ত্রী হিসেবে দিতে যাচ্ছেন টানা তৃতীয় বাজেট। 

২০১৪-তে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদে পরিকল্পনামন্ত্রীর দায়িত্ব পান লোটাস কামাল। ৫ বছরে দেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি, মাথাপিছু আয় আর জাতীয় উন্নয়নে রাখেন প্রত্যক্ষ অবদান। এরপর বর্তমান সরকারের তৃতীয় মেয়াদে এসে সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের স্থলাভিষিক্ত হন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দে।

আরও পড়ুন