স্মার্টফোন কিনতে ঋণ পাচ্ছেন ঢাবি শিক্ষার্থীরা

 স্মার্টফোন কিনতে ঋণ পাচ্ছেন ঢাবি শিক্ষার্থীরা
Read Time:5 Minute, 15 Second

করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় শুরু থেকেই বন্ধ রয়েছে শিক্ষা কার্যক্রম। এতে স্থবির হয়ে পড়েছে শিক্ষা ব্যবস্থা। অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার চেষ্টা করছেন সংশ্লিষ্টরা। কিন্তু শতভাগ শিক্ষার্থীর স্মার্টফোন না থাকা ও ইন্টারনেট জটিলতায় এ কার্যক্রমে আশানুরূপ ফল মিলছে না। সেই শিক্ষা ব্যবস্থাকে সচল করার জন্য নানা উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)।

এবার স্মার্টফোন কিনতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের বিনা সুদে ৮ হাজার টাকা ঋণ দেবে প্রশাসন। এই ঋণ দেবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)। ঋণ পেতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীকে আগামী ১৫ জুনের মধ্যে নির্ধারিত আবেদন ফরম পূরণ করতে বলা হয়েছে।

তবে সবাইকে এই ঋণ দেয়া হবে না। অসচ্ছল শিক্ষার্থী যাদের নাম ‘শিক্ষার্থীদের সফট লোন’ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত আছে, কেবল তারাই আবেদন করতে পারবেন। ঋণের পরিমাণ আট হাজার টাকা।

বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর অথবা চারটি কিস্তিতে বা এককালীন এ টাকা পরিশোধ করতে হবে। অন্যথায় শিক্ষার্থীর নামে কোনো ট্রান্সক্রিপ্ট ও সাময়িক/মূল সনদ ইস্যু করা হবে না।

সোমবার (৭ জুন) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব পরিচালকের দপ্তর থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ইউজিসির নীতিমালা-২০২০-এর আলোকে করোনা মহামারির কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে আর্থিকভাবে অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের সুদবিহীন ঋণের আওতায় স্মার্টফোন কেনার জন্য ঋণ প্রদানের নিমিত্তে কয়েকটি শর্তে বিভাগ/ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে আবেদন করা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে তথ্য সরবরাহের জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে। আবেদনের সময় শেষ হবে ১৫ জুন।

শর্তগুলো আরেকটু সহজ হলে ভালো হতো বলছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান। এ জন্য তিনি ইউজিসির সঙ্গে কথা বলতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন বলেও জানান।

শর্তসমূহ

১) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক/স্নাতকোত্তর পর্যায়ে অধ্যয়নরত অসচ্ছল শিক্ষার্থী যাদের নাম ‘শিক্ষার্থীদের সফটলোন’ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত আছে কেবলমাত্র তারাই আবেদন করতে পারবেন।

গুগল নিউজ-এ ঢাকা পোস্টের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।

২) ঋণের সর্বোচ্চ সিলিং ৮ হাজার টাকা, যা সুদ মুক্ত। এসব টাকা সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীর ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে প্রদান করা হবে।

৩) শিক্ষার্থীদের জরুরিভিত্তিতে সোনালী ব্যাংক লি./জনতা ব্যাংক লি./অগ্রণী ব্যাংক লি. এর যেকোনো একটি শাখায় নিজ নামে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলে স্ব স্ব বিভাগ/ইনস্টিটিউটকে জানাতে হবে।

৪) সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীকে স্মার্টফোন ক্রয়ের ভাউচারটি বিভাগ/ইনস্টিটিউট এর মাধ্যমে সফটলোন অনুমোদন কমিটির সদস্য সচিবের কাছে জমা দিতে হবে।

৫) ঋণের অর্থ সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যয়নকালীন সময়ে এককালীন অথবা ৪টি সমান কিস্তিতে পরিশোধ করতে হবে।

৬) ঋণের সম্পূর্ণ অর্থ ফেরত না দেওয়া পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীর নামে কোনো ট্রান্সক্রিপ্ট ও সাময়িক/মূল সনদ ইস্যু করা হবে না।

৭) ১৫ জুনের মধ্যে শিক্ষার্থীদের সফট লোন তালিকায় নিবন্ধিত শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (www.du.ac.bd) ওয়েবসাইটে অন্তর্ভুক্ত Du Forms এর অন্তস্থ Student Softloan থেকে ডাউনলোড করে পূরণের পর নিজ নিজ বিভাগ/ইনস্টিটিউটের চেয়ারম্যান/পরিচালকের নিকট প্রেরণ করতে।

আরও পড়ুন