কমলা চাষে শিক্ষক ফাতেমার আয় বছরে ৫ লাখ

 কমলা চাষে শিক্ষক ফাতেমার আয় বছরে ৫ লাখ

লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

করোনায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ তাই ঘরে বসে সময় নষ্ট না করে কমলা বাগান পরির্চযায় ব্যস্ত সময় পার করছেন জাতীয় পুরুস্কার প্রাপ্ত কমলা চাষী লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার পশ্চিমসারডুবী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোছা: ফাতেমা মজুমদার।
উপজেলার মিলন বাজার মোজাম্মেল হোসেন আহম্মেদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পশ্চিম সারডুবী এলাকার খলিলুর রহমান এর স্ত্রী পশ্চিম সাড়ডুবি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফাতেমা মজুমদার ২০০৫ সালে কমলা খেয়ে বীজ রোপন করে পরীক্ষামূলক ১ টি চারা গাছ থেকে বিশাল বাগান করতে সক্ষম হয়েছেন। বর্তমানে নাগপুরি সহ বিভিন্ন উন্নত জাতের ৫ শতাধিক গাছে কমলা ধরেছে তার। চারা গাছ ও কমলা বিক্রি করে প্রতি মৌসুমে ৫ লাখ টাকা আয় করেন তিনি। ইতোমধ্যেই একজন সফল কমলা চাষী হিসেবে বিভিন্ন এলাকায় ব্যপক পরিচিতি লাভ করেছেন।
২০১৪ সালে শুরু হয় বাগান থেকে কমলা বিক্রি। শ্রেষ্ঠ কমলা চাষী হিসেবে ২০১৬ সালের ৭ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রীর দেয়া জাতীয় পুরুস্কার লাভ করেন ফাতেমা মজুমদার।
সরজমিনে কথা হয় কমলা চাষী ফাতেমা মজুমদারের সাথে। এসময় তিনি বলেন, কমলা একটি অর্থকারী ফল হলেও আমরা উত্তরাঞ্চলের মানুষ হিসেব করি না। অথচ এ অঞ্চলের মাটি কমলা চাষের উপযোগী।আর তার বাস্তব প্রমাণ আমার বাগান। তিনি আরও বলেন, ৫ শতাধিক কমলা গাছ থেকে কমলা ও নার্সারী থেকে হাজার হাজার চারা বিক্রি করে বছরে ৫ লাখ টাকা আয় হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *