করোনার টিকা বিক্রির অভিযোগে ইপিআই পোর্টারম্যান বরখাস্ত

 করোনার টিকা বিক্রির অভিযোগে ইপিআই পোর্টারম্যান বরখাস্ত

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় টাকার বিনিময়ে বাড়িতে গিয়ে করোনার টিকা প্রয়োগের অভিযোগে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির (ইপিআই) পোর্টারম্যান (ভ্যাকসিন বাহক) জাকির হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। 

মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নুসরাত জাহান মিথেন বলেন, পোর্টারম্যান জাকিরের অনিয়মের প্রমাণ পাওয়ায় তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ সংক্রান্ত চিঠি সিভিল সার্জন কার্যালয় ও ডিজি বরাবর পাঠিয়েছি। তদন্ত শেষে যদি জাকিরের সঙ্গে সম্পৃক্ত কারও প্রমাণ পাওয়া যায় তাহলে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গত ১৯ আগস্ট ৩১টি টিকা চুরি করেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায় জাকিরের বিরুদ্ধে। পরে উপজেলার মরাদন গ্রামে ও ২২ আগস্ট ঠাকুরচর গ্রামে জাকির টাকার বিনিময়ে বাড়িতে গিয়ে করোনার টিকা দেন বলে জানা যায়। বিষয়টি জানতে পেরে ২২ আগস্ট চাঁদপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. সাখাওয়াত উল্লাহর নির্দেশে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডা. মাইনুল ইসলাম মোনাসকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এ ঘটনায় উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মতলব উত্তর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

এ বিষয়ে তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ডা. নাইমুল ইসলাম মোনাস বলেন, প্রাথমিকভাবে জাকিরের বিষয়ে আনীত অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। আমাদের তদন্ত অব্যাহত আছে।

এ বিষয়ে সিভিল সার্জন ডা. মো. সাখাওয়াত উল্ল্যাহ বলেন, ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করতে মঙ্গলবার তদন্ত কমিটি পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট আমার কাছে জমা দেবে। তদন্ত রিপোর্ট আসলে পুরো বিষয়টি ক্লিয়ার হবে।

তিনি জানান, জাকির টিকাগুলো বহন করতেন। এটি ছিল তার দৈনিক হাজিরা ভিত্তিতে কাজ। সবার অগোচরে তিনি কিছু টিকার ডোজ সরিয়ে একটি বাড়িতে গিয়ে টিকাগুলো দেন। আমরা জানতে পেরে তাকে বরখাস্ত করেছি। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মতে তার বিরুদ্ধে আরও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতোমধ্যেই ওই ব্যক্তি বিষয়টি স্বীকার করেছেন। আমরা তার বিরুদ্ধে মামলা করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *