কেমার রোচের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে হারল পাকিস্তান

 কেমার রোচের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে হারল পাকিস্তান

৩৬ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করা পাকিস্তান ৬৫ রানে চার উইকেট হারিয়ে পড়েছিল মহাবিপর্যয়ে।

সেখান থেকে দলকে টেনে তুলে কিংসটন টেস্টে পাকিস্তানের আশা জিইয়ে রাখেন অধিনায়ক বাবর আজম।

রোববার চতুর্থদিনে পাকিস্তানের দ্বিতীয় ইনিংস থামে ২০৩ রানে। বাবরের উইলো থেকে আসে সর্বোচ্চ ৫৫ রান।

চতুর্থ ইনিংসে ১৬৮ রানের লক্ষ্য দেয় পাকিস্তান।

আর এই মামুলি লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৩৮ রানে তিন উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় উইন্ডিজ। তিনটি উইকেটই নেন শাহিন আফ্রিদি।

আর সেখান থেকে ছোট ছোট পার্টনারশিপ গড়ে দলকে জিতিয়ে দেন ক্যারিবীয়রা। রুদ্ধশ্বাস এ ম্যাচে জয়ের অন্যতম নায়ক ১০ নম্বরে নামা ক্যারিবীয় পোসার কেমার রোচ। শেষ পর্যন্ত তার উইকেটটি ফেলতে পারেননি পাক বোলাররা।

৫০ বলে ৩০ রানের মহামূল্যবান ইনিংস খেলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন রোচ। মাত্র এক উইকেটের ব্যবধানে জিতেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

সাবিনা পার্কে মাত্র ১৬৮ রানের লক্ষ্য পার করতেই পাক বোলারদের তোপে গলদঘর্ম হয়েছে স্বাগতিকরা। তাতে ম্যাচে ভর করেছিল যারপরনাই রোমাঞ্চ। ম্যাচের শেষ পর্যন্ত বোঝা যায়নি কে হাসবে?

চতুর্থ দিনে পাকিস্তানের ‘মামুলি’ লক্ষ্য কঠিন করে তোলেন পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদি। আগের ইনিংসে ৯৭ রানের ইনিংস খেলা অধিনায়ক ক্রেইগ ব্রাথওয়েটকে ফেরান মাত্র ২ রানে। এরপর কাইরন পাওয়েলকে ৪ ও এনক্রুমাহ বোনারকে ৫ রানে দ্রুতই ফিরিয়ে দেন তিনি।

৩৮ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে স্নায়ুচাপে ভোগা শুরু করেন উইন্ডিজরা।

জের্মাইন ব্ল্যাকউড আর রস্টন চেজে ৬৮ রানের জুটি গড়ে সেই চাপ সামলে নেন অনেকটাই। কিন্তু ব্ল্যাকউড ৫৫ রান করে হাসান আলির বলে আউট হলে ফের ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

কাইল মেয়ার্সকে শূন্য রানে ফেরান ফাহিম আশরাফ। জেসন হোল্ডারকে ১৬ রানের বেশি করতে দেননি হাসান আলি।

১১৪ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে ফের বিপদে পড়ে ক্যারিবীয়রা। লক্ষ্যটা তখনো ৫৪ রান দূরে। ক্রিজে তখন শেষ স্বীকৃত ব্যাটসম্যান জশুয়া দা সিলভা। তাকে ১৩ রানে সাজঘরের পথ দেখান শাহিন আফ্রিদি। জয়ের জন্য যখন ২৮ রান দরকার তখন দুই টেলএন্ডার কেমার রোচ ও ওয়ারিক্যান।

ওয়ারিক্যান ১৩ বলে ৬ রান করে ফিরলেও ঠায় দাঁড়িয়ে রইলেন রোচ। শেষ উইকেটে সোলাসকে সঙ্গে নিয়ে করলেন ৫২ বলে মহামূল্য ৩০ রান। তাতে ১ উইকেটে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়েন রোচ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-
পাকিস্তান প্রথম ইনিংস ২১৭ (ফাওয়াদ আলম ৫৬; জেসন হোল্ডার ৩-২৬)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংস ২৫৩ (ব্রাথওয়েট ৯৭; শাহিন ৪-৫৯)
পাকিস্তান দ্বিতীয় ইনিংস ২০৩ (বাবর ৫৫; সিলস ৫-৫৫)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ দ্বিতীয় ইনিংস ১৬৮-৯ (ব্ল্যাকউড ৫৫; আফ্রিদি ৪-৫০)
ফল- উইন্ডিজ ১ উইকেটে জয়ী।
সিরিজ- উইন্ডিজ ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে।
ম্যাচসেরা- জেইডেন সিলস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *