নেদারল্যান্ডসে আংশিক লকডাউন

 নেদারল্যান্ডসে আংশিক লকডাউন

নেদারল্যান্ডসে আংশিক লকডাউন কার্যকর হয়েছে। দেশটিতে করোনা সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে। এরই মধ্যে সর্বশেষ অতি সংক্রামক ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের আতঙ্কে কর্তৃপক্ষ দেশজুড়ে আংশিক লকডাউন জারি করতে বাধ্য হয়েছে। খবর বিবিসির।

কমপক্ষে আগামী তিন সপ্তাহ সব ধরনের সাংস্কৃতিক ভেন্যু বিশেষ করে ক্যাফে, জাদুঘর এবং সিনেমা হল অবশ্যই বন্ধ থাকবে। হাসপাতালগুলোতে রোগীর চাপ যেন না বাড়ে এবং পরিস্থিতি যেন নিয়ন্ত্রণে থাকে সেজন্যই কর্তৃপক্ষ এমন কঠোর পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয়েছে।

সম্প্রতি করোনায় আক্রান্ত ৬১ জনকে পরবর্তী পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে। তারা ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত কিনা তা যাচাই করা হচ্ছে। এরা সবাই সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে কেএলএম-এর দুটি ফ্লাইটে করে নেদারল্যান্ডসে প্রবেশ করেছেন।

চলতি মাসের শুরুর দিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম করোনার এই ধরনটি শনাক্ত হয়। শুক্রবার আমস্টারডামের স্কিফল বিমানবন্দরে কেএলএমের দুটি ফ্লাইটে প্রায় ৬শ যাত্রী নেদারল্যান্ডসে পৌঁছান। করোনার নতুন ধরনের কারণে তাদের ফ্লাইট বেশ কয়েক ঘণ্টা বিলম্ব হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার মধ্য দিয়েও যেতে হয়েছে।

ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার পর থেকেই উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত করোনাভাইরাসের এই নতুন ধরনকে উদ্বেগের কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। তারা জানিয়েছে, করোনার অন্য সংক্রামক ধরনগুলোর তুলনায় নতুনটিতে পুনঃআক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। সে কারণে বিভিন্ন দেশে ওমিক্রন নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। এরই মধ্যে বিভিন্ন দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ফ্লাইট বাতিল করতে শুরু করেছে। অনেক দেশ আবার ভ্রমণে বিধিনিষেধও জারি করেছে।

ডাচ প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটে চলতি মাসের শুরুতেই দোকান-পাট, খেলাধুলা এবং ক্যাটারিংয়ের ওপর বিধিনিষেধ ঘোষণা করেন। নেদারল্যান্ডসে ইন্টেন্সিভ কেয়ারে শয্যা সংকট রয়েছে। অনেক হাসপাতালেই অপারেশন বাতিল করা হচ্ছে এবং প্রায় প্রতি সপ্তাহেই শত শত মানুষ প্রাণ হারাচ্ছে।

গত শুক্রবার নতুন করে দেশটিতে ২২ হাজারের বেশি নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এরই মধ্যে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। কারণ সর্বশেষ শনাক্ত হওয়া এই ভ্যারিয়েন্ট আগের গুলোর চেয়ে অনেক বেশি সংক্রামক।

এদিকে সরকার আংশিক লকডাউন ঘোষণার পর হাজার হাজার বিক্ষোভকারী রাজপথে নেমে এসেছে। অপরদিকে বিক্ষোভকারীদের হটাতে জল কামান নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত নেদারল্যান্ডসে প্রায় ২০ হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *