পাহাড়ধসে নিখোঁজ একজনের লাশ মিলেছে, মা-ছেলের খোঁজ নেই

 পাহাড়ধসে নিখোঁজ একজনের লাশ মিলেছে, মা-ছেলের খোঁজ নেই

বান্দরবানে পাহাড়ধসে একই পরিবারের নিখোঁজ তিনজনের মধ্যে একজনের লাশ আজ বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে আটটার দিকে পাওয়া গেছে। তার নাম বাজেরুং ত্রিপুরা (১২)। তার মা কিষ্ণাতি ত্রিপুরা ও ভাই প্রদীপ ত্রিপুরা (৮) এখনো নিখোঁজ।

ফায়ার সার্ভিসের বান্দরবান স্টেশন কর্মকর্তা নাজমুল আলম ঘটনাস্থল থেকে জানান, প্রথমে মা ও মেয়ের লাশ পাওয়া গেছে বলে খবর এসেছিল। পরে নিশ্চিত হয়, লাশটি কিষ্ণাতি ত্রিপুরার মেয়ে বাজেরুং ত্রিপুরার।

গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় ভারী বৃষ্টির সময় বান্দরবান সদর ইউনিয়নের সাইঙ্গ্যাপাড়ার ঘাটে পাহাড়ধসে একই পরিবারের তিনজন নিখোঁজ হন। দুই ছেলে-মেয়ে ও মা জুমচাষের কাজ শেষে সাইঙ্গ্যাপাড়ার বাড়িতে ফিরছিলেন। তাঁদের সঙ্গে কিষ্ণাতি ত্রিপুরার ছোট বোন রাংখাতি ত্রিপুরাও (৩৫) ছিলেন। তিনি কোনোরকমে প্রাণে বেঁচেছেন।

সাইঙ্গ্যাপাড়ার বাসিন্দা ও বান্দরবান সদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য জগদীশ ত্রিপুরা জানান, আজ সকালে পাহাড়ধসের স্থানে মাটি খুঁড়ে নিখোঁজ ব্যক্তিদের সন্ধান করা হচ্ছিল। সকাল পৌনে আটটার দিকে লাইমিপাড়া থেকে সংবাদ আসে, চিম্বুক নিম্নমাধ্যমিক বিদ্যালয় এলাকায় একটি লাশ পাওয়া গেছে। সাইঙ্গ্যাঝিরির পাহাড়ি ঢলের স্রোতে লাশটি ভেসে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। গতকাল সারা রাত ও আজ সকালে পাড়ার লোকজন, সেনাবাহিনী, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা পাহাড়ধসের স্থানে মাটি সরিয়ে নিখোঁজ ব্যক্তিদের কাউকে পাননি।

বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহাগ রানা বলেন, সম্ভবত তিনজনই পাহাড়ি ঢলে ভেসে গেছেন। নিখোঁজ মা ও ছেলের সন্ধানে ঘটনাস্থলে মাটি সরানোর পাশাপাশি সাইঙ্গ্যাঝিরিতে খোঁজাখুঁজি চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *