বিতর্কিত ৩৪ ব্যক্তির হাতে আ.লীগের মনোনয়ন

 বিতর্কিত ৩৪ ব্যক্তির হাতে আ.লীগের মনোনয়ন

ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়নে আগের ধারা বজায় রেখেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। বিগত চার ধাপের মতো পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনেও হত্যা, ধর্ষণ, অর্থ ও চাল আত্মসাৎসহ চাঁদাবাজি মামলার অনেক আসামিকে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দিয়েছে দলটি। বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতার কার্ড নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ আছে এমনকি একসময় বিএনপির রাজনীতি করেছেন—এমন সব লোকজনও এবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন।

পঞ্চম ধাপে ৮ জেলায় এমন ১৫ জন সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীর খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে শুধু ঢাকার সাভারেই আছেন ৫ জন। এর আগে দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ ধাপে ১৯ জনকে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন দিয়েছিল, যাঁদের বিরুদ্ধে হত্যা, ধর্ষণ, অর্থ ও চাল আত্মসাৎসহ নানা অভিযোগ ছিল। এ নিয়ে পাঁচটি ধাপের ইউপি নির্বাচনে ৩৪ জন বিতর্কিত ব্যক্তি ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন পেলেন।

সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার আমাদের বার্তাকে বলেন, মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষেত্রে সব দলের একটি শৃঙ্খলা, নিয়মকানুন থাকবে এটা প্রত্যাশিত; যাতে যোগ্য প্রার্থীরা মনোনয়ন পান। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত এখন প্রার্থী মনোনয়নের ক্ষেত্রে একটি সিন্ডিকেটের মতো কাজ করে, টাকাপয়সার লেনদেন বা প্রভাবের কারণে অনেক মনোনয়ন দেওয়া হয়। ক্ষমতায় গিয়ে প্রভাব খাটিয়ে সুবিধা আদায় করা হয়। এখন নির্বাচনের ক্ষেত্রে যোগ্যতা, সততা, জনকল্যাণ—এসব গুরুত্বপূর্ণ নয়। এটি এখন অনেকটা ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডে পরিণত হয়েছে।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ আমাদের বার্তাকে বলেন, চেয়ারম্যান প্রার্থীদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ ছিল, পরে দেখা গেছে সেসব সত্য নয়। মনোনয়ন দেওয়ার সময় সবকিছু খতিয়ে দেখা হয়েছে। এরপরও যদি কোনো জায়গায় ভুলে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকা কোনো প্রার্থী মনোনয়ন পেয়ে যান, তাহলে তাঁরা সেই মনোনয়ন পরিবর্তন করবেন।

পঞ্চম ধাপে ৭০৭ ইউপি নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হবে আগামী বছরের ৫ জানুয়ারি।

হত্যা ও ধর্ষণ মামলার ৪ আসামি প্রার্থী

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বাঁশতৈল ইউপিতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন আতিকুর রহমান। ২০১২ সালের ১৭ জুলাই গাজীপুরের ভোগড়া থেকে চিকিৎসক এ এন এম মনিরুল হুদার (রুপম) লাশ উদ্ধার করা হয় তাঁরই ব্যক্তিগত গাড়ি থেকে। ওই চিকিৎসক হত্যা মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্রও দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে তিনি জামিনে আছেন।

যশোর সদর উপজেলার চাঁচড়া ইউপিতে হত্যা মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি সেলিম রেজাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। সেলিম রেজা যশোর শহরের মৎস্য ব্যবসায়ী। চাঁচড়া এলাকার ব্যবসায়ী ইমরোজ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তিনি জড়িত বলে অভিযোগপত্র দিয়েছে পুলিশ।

২০১৭ সালের মার্চে ঢাকার সাভারের আশুলিয়ার নয়ারহাট এলাকায় আওয়ামী লীগের কর্মী আবদুর রহিম গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন। ওই ঘটনায় পারভেজ দেওয়ানকে প্রধান আসামি করে আশুলিয়া থানায় মামলা করে নিহতের পরিবার। পরে তাঁকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। ওই হত্যা মামলার অভিযোগপত্রেও তাঁর নাম আছে। বর্তমানে তিনি জামিনে আছেন। সেই পারভেজ দেওয়ান সাভারের পাথালিয়া ইউপিতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন। তিনি আমাদের বার্তাকে বলেন, ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় ওই মামলায় আমার নাম দেওয়া হয়েছিল।’

সাভারের আশুলিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন শাহাব উদ্দিন। গত বছরের সেপ্টেম্বরে তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেছিলেন এক তরুণী। শাহাব উদ্দিনের দাবি, মামলাটি সাজানো ছিল।

ছয়জনের বিরুদ্ধে অর্থ ও চাল আত্মসাতের অভিযোগ

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে আনাইতারা ইউপির চেয়ারম্যান মো. জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে ভিজিএফের চাল আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে। তিনিও এবার চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের জন্য আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন। ২০১৬ সালের ২৪ নভেম্বর দুই চাল ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৫ হাজার ৯০ কেজি ভিজিএফের চাল উদ্ধার করা হয়। এ নিয়ে করা মামলায় আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়েছে। জানতে চাইলে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, তিনি জামিনে আছেন।

চাল আত্মসাৎসহ নানা দুর্নীতির অভিযোগে বরখাস্ত হওয়া ভোলা সদরের রাজাপুর ইউপির চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান খান আবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন। দুর্নীতির অভিযোগে মিজানুর রহমান তাঁর মেয়াদকালে সাময়িক বরখাস্তও ছিলেন। বরখাস্তের পর মিজানুর রহমান উচ্চ আদালতে রিট করলে বিচারক তিন মাসের জন্য অস্থায়ী স্থগিতাদেশ দেন, যা ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত বহাল আছে।

রাজশাহীর বাগমারার গোয়ালকান্দি ইউপিতে মনোনয়ন পাওয়া বর্তমান চেয়ারম্যান আলমগীর সরকারের বিরুদ্ধে কর্মসৃজন কর্মসূচির অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে। এ নিয়ে অভিযোগের পর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়।

বাগমারা উপজেলার ঝিকড়া ইউপিতে এবারও মনোনয়ন পেয়েছেন আবদুল হামিদ ফৌজদার। তাঁর বিরুদ্ধে করোনাকালে ক্ষতিগ্রস্ত দরিদ্র পরিবারের জন্য এককালীন আড়াই হাজার টাকার নগদ সহায়তা কার্যক্রমের তালিকা তৈরিতে অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ ছিল। এ নিয়ে আমাদের বার্তায় সংবাদ প্রকাশ হলে জেলা প্রশাসন তদন্ত করে। সত্যতা পাওয়ার পর প্রতিবেদনও দেওয়া হয়।

বিস্ফোরক দ্রব্য আইন, মারপিট, হুমকি, জখমসহ পাঁচ মামলার আসামিকে বাগমারার আউচপাড়া ইউপি থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান সরদার জান মোহাম্মদ।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার সুন্দরপুর ইউপিতে মনোনয়ন পাওয়া বর্তমান চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে ৪০ দিনের কর্মসৃজন কর্মসূচিতে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। এ ছাড়া তাঁর বিরুদ্ধে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, দুস্থ মাতার কার্ড নিয়ে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশনের কাছে।

আছে চাঁদাবাজিসহ নানা অভিযোগ

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার ইউপিতে মনোনয়ন পাওয়া নাহিদ সুলতানা একসময় বিএনপির রাজনীতি করতেন বলে জানা গেছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ কুদরত-এ-এলাহী বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সুপারিশের ভিত্তিতে নবাগত সদস্য হিসেবে তাঁর নাম নির্বাচনী বোর্ডে পাঠানো হয়। আর নাহিদ সুলতানার দাবি, তিনি কখনো বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন না।

মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলার গালা ইউপি নির্বাচনে অস্ত্র ও অপহরণ মামলার এক আসামি নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন। তাঁর নাম রাজিবুল হাসান ওরফে রাজিব। তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। এ ব্যাপারে রাজিবুল হাসান বলেন, ‘মামলাটি বিচারাধীন। আমি এই মিথ্যা মামলা থেকে খালাস পাব।’

ঢাকার সাভারের বিরুলিয়া ইউপিতে আওয়ামী লীগের সাইদুর রহমানের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে। চাঁদাবাজির মামলায় গ্রেপ্তারও হয়েছিলেন তিনি। গত বছরের সেপ্টেম্বরে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগে সাভার থানায় সাইদুর রহমানকে আসামি করে মামলা করেছিলেন আশরাফুল আলম নামের এক ব্যক্তি।

এবার সাভার ইউপিতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন সোহেল রানা। ২০১৪ সালের ঝুট ব্যবসার বিরোধের জেরে রাসেল নামের একজনকে গুলি করার ঘটনায় সাভার মডেল থানায় করা মামলায় তাঁকে আসামি করা হয়েছিল। ওই মামলায় তিনি গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। সোহেল রানার দাবি, ‘ঘটনার সঙ্গে আমি জড়িত ছিলাম না।’

সাভারের বনগাঁও ইউপিতে নৌকার মনোনয়ন পাওয়া সাইফুল ইসলামের বিরুদ্ধে সরকারি প্রকল্পে অনিয়ম, দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। এসব অভিযোগে গত জুনে নয়টি ওয়ার্ডের ইউপি সদস্যরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অনাস্থা প্রস্তাব দিয়েছিলেন। এর আগে ২০২০ সালেও তাঁর প্রতি অনাস্থা জানিয়েছিলেন ইউপি সদস্যরা। তাঁর বিরুদ্ধে জমি দখলেরও অভিযোগ রয়েছে।

ফাঁসির আসামিকে মনোনয়ন, পরে সংশোধন

ঢাকার সাভারে আমিনবাজার ইউপি নির্বাচনে বর্তমান চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনকে মনোনয়ন দিয়েছিল আওয়ামী লীগ। তবে ঘণ্টাখানেকের মাথায় সেই মনোনয়ন সংশোধন করে মো. রকিব আহম্মেদ নামের একজনকে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী মনোনীত করা হয়।

আনোয়ার হোসেন ২০১১ সালে আমিনবাজারের বড়দেশী গ্রামে ডাকাত আখ্যা দিয়ে ছয় ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার মামলায় মৃত্যুদণ্ড পাওয়া আসামি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *