যুক্তরাষ্ট্রে লকডাউনের প্রয়োজন নেই এখন: বাইডেন

 যুক্তরাষ্ট্রে লকডাউনের প্রয়োজন নেই এখন: বাইডেন

করোনা ভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনকে ‘কজ অব কনসার্ন, নট এ কজ ফর প্যানিক’ বা উদ্বেগের কারণ, তবে ভীতির কারণ নয়- বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, জনগণ যদি টিকা নেয় এবং মুখে মাস্ক পরে, তবে এখন লকডাউন দেয়ার প্রয়োজন নেই। সোমবার তিনি হোয়াইট হাউজে বলেন, এটা এখন নিশ্চিত করে বলা যায় ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট এক সময় না এক সময় যুক্তরাষ্ট্রে পাওয়া যাবেই। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিবেশী কানাডায় শনাক্ত হয়েছে ওমিক্রন। দক্ষিণ আফ্রিকার আটটি দেশের বিরুদ্ধে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। টিকা আসা সত্ত্বেও এবং প্রেসিডেন্ট বাইডেন ভাইরাসের বিরুদ্ধে শাটডাউনের প্রতিশ্রুতি দেয়া সত্ত্বেও গত বছরের তুলনায় এ বছর যুক্তরাষ্ট্রে বেশি সংখ্যক মানুষ মারা গেছেন। প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেছেন, প্রয়োজন হলে নতুন এই ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে নতুন টিকা তৈরির জন্য জরুরি পরিকল্পনা তৈরি করছে টিকা উৎপাদনকারী কোম্পানিগুলো।

গত সপ্তাহে দক্ষিণ আফ্রিকা, বোতসোয়ানা, জিম্বাবুয়ে, নামিবিয়া, লেসোথো, ইশাতিনি, মোজাম্বিক এবং মালাবির বিরুদ্ধে ফ্লাইট নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ভ্রমণে বিধিনিষেধ দিয়েছে কানাডা, বৃটেন, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও অন্য দেশগুলো। যুক্তরাষ্ট্রের উত্তরের প্রতিবেশী কানাডা রোববার প্রথম ওমিক্রন সংক্রমণের কথা নিশ্চিত করেছে। বলেছে, সেখানে দু’জনের শরীরে এই ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে। ওই দুই ব্যক্তি সম্প্রতি নাইজেরিয়া সফর করেছেন। তৃতীয় আরেকজন আক্রান্ত হওয়ার কথা জানানো হয়েছে সোমবার।

এ অবস্থায় যুক্তরাষ্ট্রে এই ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হওয়া সময়ের ব্যাপারমাত্র- প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের মন্তব্যে তেমনটাই ইঙ্গিত করা হয়েছে।
ওদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ওমিক্রনকে ‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। তবে পরিষ্কার করে বলেনি, এটা কত বেশি সংক্রামক এবং টিকার বিরুদ্ধে কতটা ঝুঁকিপূর্ণ এই ভ্যারিয়েন্ট।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রে ২০২০ সালে যখন করোনা ভাইরাস বিস্তার লাভ করে তখন জানুয়ারি মাসে চীনের বিরুদ্ধে ভ্রমণে বিধিনিষেধ আরোপ করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তার সমালোচনায় প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, ট্রাম্প ছিলেন অকারণ বিদেশাতঙ্কে।

ফ্লোরিডার গভর্নর, রিপাবলিকান রন ডেস্যান্টিসকে দেখা হচ্ছে আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে। ওমিক্রনের কারণে যুক্তরাষ্ট্র সর্বশেষ ফ্লাইটে যে বিধিনিষেধ দিয়েছে তাকে তিনি ‘হাঁটু কাঁপানি’ প্রতিক্রিয়া বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, ফ্লোরিডায় আমরা আপনাকে লকডাউন দিতে দেবো না। আমাদের জনগণের কাজ কেড়ে নিতে দেবো না। কারো ব্যবসার ক্ষতি হতে দেবো না। স্কুল বন্ধ হতে দেবো না। উন্মত্ততা থেকে বার বার একই কাজ করা হচ্ছে এবং প্রতিবারই ভিন্ন ফল আশা করা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের মতে, করোনা ভাইরাসের টিকা নেয়ার পদক্ষেপকে বাতিল করেছে ফ্লোরিডা। সেখানে মুখে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করায়ও বাধ সেধেছে রাজ্য। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের মোট ৫০টি রাজ্যের মধ্যে এখন যেসব রাজ্যে সংক্রমণ হার সবচেয়ে কম, তার মধ্যে অন্যতম ফ্লোরিডা।

এ অবস্থায় প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সোমবার আবার যখন জনগণকে মুখে মাস্ক পরার আহ্বান জানিয়েছেন, তখন নিজেই নিজের আইন ভঙ্গ করার জন্য সমালোচিত হচ্ছেন। ম্যাচাচুসেটসের নানতুকেটে অবস্থানকালে সপ্তাহান্তে থ্যাংকগিভিংয়ের সময় তার যে ছবি প্রকাশিত হয়েছে, তাতে তার মুখে মাস্ক নেই। এ কারণে তিনি যেমন সমালোচিত হচ্ছেন, তেমনি অনলাইনে সোমবার সমালোচিত হয়েছেন ফার্স্টলেডি জিল বাইডেনও। তাকে হোয়াইট হাউজে বাচ্চাদের সঙ্গে দেখা গেছে মুখে মাস্ক না পরেই সঙ্গ দিতে। তিনি স্কুলপড়ুয়া একদল বাচ্চার সঙ্গে পড়ছিলেন হোয়াইট হাউজের মধ্যে। তবে বাচ্চারা সবাই ছিল মাস্ক পরা এবং তারা সবাই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখে।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ১০টি রাজ্যের হাজার হাজার স্বাস্থ্যকর্মীর জন্য করোনা ভাইরাসের টিকা বাধ্যতামূলক করেছিলেন। কিন্তু সোমবার একজন ফেডারেল জজ তার সেই নির্দেশ আটকে দিয়েছে। বিচারক তার রায়ে লিখেছেন, সরকারি কর্মকর্তারা সম্ভবত তাদের আইনি ক্ষমতা অতিরিক্ত ব্যবহার করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *