সিটিং-গেটলক চলছে, ভাড়াও বেশি

 সিটিং-গেটলক চলছে, ভাড়াও বেশি

ঢাকা মহানগরীতে চলা সব ধরনের সিটিং ও গেটলক বাস সার্ভিস বন্ধ হওয়ার কথা থাকলেও তা হয়নি। গতকাল রবিবার রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে সিটিং সার্ভিস বাস চলতে দেখা গেছে। মোহাম্মদপুর থেকে মিরপুর ও ডেমরার পথে চলাচল করা স্বাধীন, তরঙ্গ, আলিফ, প্রজাপতি ও পরিস্থান পরিবহনের বেশ কিছু বাসে সিটিং সার্ভিস সেবা চালু থাকতে দেখা যায়। আবার অনেক রুটে বাসের গেটলক সেবা বন্ধ করে দাঁড় করিয়ে যাত্রী পরিবহন করলেও কমেনি বাসের ভাড়া।

দয়াগঞ্জ থেকে বারিধারায় নিয়মিত অফিস করতে আসেন রুম্মান আহাম্মেদ। তিনি জানান, এই পথে প্রতিদিন রাইদা নামের বাসেই চলাচল করেন তিনি। এত দিন সিটিং সার্ভিসের নামে দয়াগঞ্জ থেকে বারিধারা পর্যন্ত ৩৫ টাকা ভাড়া নিত। ডিজেলের দাম বাড়ার পর বাসের ভাড়াও ১০ টাকা বাড়ানো হয়। গতকাল সিটিং সার্ভিস বন্ধ থাকলেও এই পথে ৪৫ টাকা ভাড়া নেওয়া হয়। রামপুরা থেকে বাড্ডা পর্যন্ত ১৫ টাকা বাস ভাড়া নেওয়ার অভিযোগ করেছেন এক যাত্রী। তিনি বলেন, ‘এতটুক পথের জন্য ১০ টাকা ভাড়া নিলেই হয়। কিন্তু সিটিং সার্ভিস বাস বলে ১৫ টাকা ভাড়া নিয়েছে।’

গতকাল আজিমপুর থেকে চলা ভিআইপি ২৭, বিকাশ, দেওয়ান ও স্মার্ট উইনারেও গেটলক সার্ভিস চালু ছিল। দেওয়ানে আজিমপুর থেকে নতুন বাজার পর্যন্ত ৬০ টাকা ভাড়া নেওয়া হয়। বিকাশেও আজিমপুর থেকে বিমানবন্দর সড়ক পর্যন্ত ৫৫ টাকা ভাড়া নেওয়া হয়েছে। জানতে চাইলে বাসের চালকরা জানান, বাসের মালিকরা তাঁদের কোনো নির্দেশনা দেননি।

যদিও ঢাকায় চলা ১২৮টি রুটে সিটিং, গেটলক সার্ভিসের কোনো অনুমোদন নেই বলে জানিয়েছে ঢাকা পরিবহন মালিক সমিতি।

কিন্তু বাসে এখনো এমন সেবার নামে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় প্রসঙ্গে খন্দকার এনায়েত উল্লাহ আরো বলেন, ‘প্রথমে আমরা সংগঠনের পক্ষ থেকে বেসরকারি নির্দেশনা দিয়েছি। ঢাকায় চলা সব বাস মালিকদের সঙ্গেও বসেছি। এখন যদি তাঁরা এ ধরনের সার্ভিস বন্ধ না করেন তাহলে আইনগত কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বিআরটিএর অভিযানে ২৪৭ বাসকে জরিমানা

বাসে সরকার নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ায় অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২৪৭টি বাসের নামে মামলা করে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমাণ আদালত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *