আমার প্রত্যাশা বলতে আসলে কিছু নেই : জন

 আমার প্রত্যাশা বলতে আসলে কিছু নেই : জন

একসময়ের জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘ব্ল্যাক’র ভোকাল বর্তমান ‘ইন্দালো’ ব্যান্ডের ভোকাল জন কবির। সংগীত ভুবনে জন কবিরের পথচলা দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে। রক গানের ক্ষেত্রে নানান নতুননত্ব এনেছেন এই মেধাবী রকস্টার। ব্যান্ড তারকা পরিচয়ের পাশাপাশি অভিনেতার তকমাটাও জুড়ে গেছে তার নামের আগে। সম্প্রতি ‘সুখী মানুষের কান্না’ শিরোনামে নতুন একটি গান প্রকাশ পেয়েছে। সাম্প্রতিক কাজ নিয়ে কথা বলেছেন ইত্তেফাকের সাথে।

গানের ক্ষেত্রে বরাবরই নিরীক্ষা করতে দেখা গেছে আপনাকে। প্রচলিত ধারার বাইরে কিছু করার তাগিদ পাওয়া যায়। গানের ক্ষেত্রে এই সৃজনশীল চর্চার আগ্রহটা নিয়ে জানতে চাই—

গানে সৃজনশীলতার প্রতিফলন ঘটানোটা আমার কাছে একটা সাধারণ বিষয়। আমি নিজে যা সেটাই যদি আমার গানে/কাজে ফুটিয়ে তুলতে পারি তাহলেই আমার স্বার্থকতা। সুতরাং আমি সারাজীবনই এভাবেই চলে আসছি আর এটাই আমার একমাত্র ধ্যান-জ্ঞান। আমি যেরকম, আমার মন যেরকম থাকে ওই জিনিসটাই গানে তুলে আনাই আমার মূল কাজ। অনেকই অনেক ধরণের গান করেন, বাজারে কী ধরণের গান চলে সেটা আরেক ধরণের ব্যাপার। কিন্তু আমি কী চাই, আমার ভেতরটা কী চায় সেটাকেই বেশি প্রাধান্য দিয়েছি।

সম্প্রতি আপনার নতুন একটি গান প্রকাশ পেয়েছে। এই কাজটি নিয়ে শুনতে চাই—

আমি তো গানেরই মানুষ। আমার যখন তখন গান চলে আসে। প্রেরণার কিছু থাকে না। জাস্ট এসে যায়। আবার কখনো অনেক অনুশীলনের পর একটা গান আসে। সুতরাং এটা ওই রকমই একটা গান। অনেকদিন হলো গানটা পড়ে ছিল, হঠাত্ একদিন মনে হলো এটা শেষ করা উচিত। কওে ফেললাম। গানটি আমারই পরিচিত একজনের জীবন নিয়ে লেখা। সেটা ব্যক্তিগত। কিন্তু ভিডিওটা পেছনে একটা প্রেরণা ছিলো। আমাদের এখন যেসময় পার করছি এই পরিস্থিতির পর আমাদের জীবনের কী ধরণের পরিবর্তন আসতে পারে এটাই দেখানোর চেষ্টা করেছি।

দীর্ঘ ক্যারিয়ারে প্রত্যাশার জায়গায় পৌঁছাতে পেরেছেন বলে মনে করেন?

সত্যি কথা বলতে গান আমার কাছে এমন একটা জিনিস সেখানে আমার প্রত্যাশা বলতে আসলে কিছু নেই। অনেকে আমাকে জিজ্ঞেস করে আমি যদি গানের মানুষ না হলে আমি কী করতাম। তখন আমার উত্তরটা এমন থাকে যে- তাহলে সারাজীবন আমি গান শুনতাম। প্রত্যাশার জায়গা তেমন কিছু নেই। আসলে আমি কখনোই কিছু চাইনি। তারপরও সবার কাছে থেকে যে ভালোবাসা পেয়েছি সেটাই অনেক। তাতেই আমি খুশি। তবে আমার নিজের কাছে প্রত্যাশা যে, যতোদিন বেঁচে আছি ততোদিন যেনো নিজের জন্য গান করতে পারি। সেটা মানুষ শুনুক বা না শুনুক।

নতুন যারা গানকে পেশা হিসেবে নিতে চান তাদের জন্য আপনার পরামর্শ কী?

প্রথম এবং শেষ পরামর্শ হলো- গান করুন আর যাই করুন সেটাকে মন থেকে ভালো বাসতে হবে। যে ভালোবাসায় কোনো চাওয়া পাওয়া নেই। আপনি যদি গান করতে চান তাহলে সেটাকে এমনভাবে চাইতে হবে যে এটার কাছে থেকে আপনি কিছু চাইতে পারবেন না। শুধু দিয়ে যেতে হবে। তখনই হয়তো কিছু পাবেন। সুতরাং আমি বলবো সবাই যেনো তাদের কাজে সততার জায়গাটা বজায় রাখেন। কাজের প্রতি যদি ভালোবাসা থাকে তাহলে অনেককিছু খুলে যাবে।

আর যদি প্রথমেই চিন্তা করেন আমি গায়ক হবো, আমি একটা ব্যান্ডে ঢুকবো, মিউজিকের কারণে অনেক সুবিধা গ্রহণ করবো ইত্যাদি ইত্যাদি। এতোকিছু চিন্তা করে যদি কিছু শুরু করা যায় তবে সেটা পিওর থাকে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *